Skip to content Skip to footer

ফেসবুক হ্যাকিং থেকে বাঁচার উপায়

তানভীর ইসলাম :

আজকাল অনেকেই ফেসবুকের সাথে সম্পৃক্ত। ফেসবুক ব্যবহার করে না এরকম সংখ্যা নেই বললেই চলে। আমাদের দেশে ফেসবুক ব্যবহার করা শিক্ষার্থীদের সংখ্যাই বেশি। আমরা সারাদিন পর ফেইসবুক ব্যবহার করি। কিন্তু আমরা ফেসবুক থেকে কতটা নিরাপদ সেটা চিন্তা করিনা। অনেকেই অনলাইনে সাইবার বুলিং এর শিকার হচ্ছে কিংবা অনেকের হয়রানির শিকার হচ্ছে। এগুলোর ফলে যে কেউ মানসিক সমস্যায় ভুগছে। তবে বেশ কিছু কাজের মাধ্যমে হ্যাকিং থেকে বাচা সম্ভব। আজকাল দেখা যায় আমাদের দেশে ফেসবুক অ্যাকাউন্টগুলো কমবেশি হ্যাকিং এর ঝুঁকিতে থাকে। হ্যাকিং থেকে বাঁচার জন্য কিছু কাজ করতে পারি।তো চলো, সেগুলো জেনে নেইঃ

জটিল পাসওয়ার্ড এর ব্যবহার

ফেসবুক একাউন্টকে সুরক্ষিত রাখতে সব সময় দীর্ঘ এবং জটিল পাসওয়ার্ড ব্যবহার করতে হবে। যথাসম্ভব প্রত্যেকটা একাউন্ট এর ক্ষেত্রে আলাদা আলাদা পাসওয়ার্ড ব্যবহার করতে হবে। পাসওয়ার্ড তৈরি করার সময় বেশ কিছু বিষয় মাথায় রাখতে হবে। যেমনঃ ছোট বড় অক্ষর, চিহ্ন, সংখ্যা প্রভৃতি ব্যবহার করা যেতে পারে। এছাড়াও একাউন্ট সুরক্ষায় আপনার পাসওয়ার্ডে (%#@*”‘)?+!-&) এ চিহ্ন গুলো ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়াও অনেক সময় একজন ফেসবুক ইউজার অপর ইউজারকে তার পাসওয়ার্ড দিয়ে দেয় কিংবা পাসওয়ার্ড শেয়ার করে, যা থেকে একাউন্ট হ্যাকিং এর ঘটনা ঘটে। কোন বন্ধুকে আপনি আপনার পাসওয়ার্ড শেয়ার করার ফলে তিনি আপনার একাউন্টে ঢুকে উল্টাপাল্টা কোন কিছু করতে পারেন। আর এতে আপনি গুরুতর সমস্যায় পড়তে পারেন। তাই ব্যবহারের সর্বদা জটিল এবং দীর্ঘ পাসওয়ার্ড ব্যবহার করুন। যাতে অন্যরা কেউ আপনার পাসওয়ার্ড অনুমান কিংবা না জানতে পারে। মনে রাখবেন, আপনার অ্যাকাউন্ট সুরক্ষিত মানে আপনি সুরক্ষিত।

Two Factor Authentication এর ব্যবহার

বর্তমান সময়ে নিজের ফেসবুক একাউন্টে পাসওয়ার্ড ব্যবহার করলেই যে আইডি সুরক্ষিত তা ভাবা মোটেই ঠিক নয়। যেকোনো সময় আইডি হ্যাক হতে পারে। এটাই স্বাভাবিক। তাই একাউন্টের সুরক্ষার জন্য টু ফ্যাক্টর অথেন্টিকেশন বা দুই স্তরের নিরাপত্তা ব্যবহার করা জরুরি। বর্তমান সময়ে প্রায় প্রত্যেকটি ফেসবুক আইডিতে দুই স্তরের নিরাপত্তা ফিচারটি ব্যবহার করা যায়। two-factor অথেন্টিকেশন বার দুই স্তরের নিরাপত্তা ফিচারটি ব্যবহার করার জন্য পাসওয়ার্ড দেওয়ার পরেও তার স্মার্টফোনে কিংবা ট্যাবে নতুন একটি কোড নাম্বার যাবে সে কোড নাম্বারটি পুনরায় সেখানে দিতে হয়। এতে করে একাউন্টের অতিরিক্ত নিরাপত্তা পাওয়া যায়। দুই স্তরের নিরাপত্তা থাকার ফলে আপনি যতক্ষণ আপনার হাতে সেই স্মার্টফোনটি রাখছেন ততক্ষণ পর্যন্ত অন্য কেউ আপনার আইডিতে ঢুকতে কিংবা চালাতে পারবে না। ফেসবুক সহ অ্যাপেল, গুগল, টুইটার প্রভৃতিতে এরকম ফিচার চালু আছে। আপনি যতবার নতুন ডিভাইসে লগ ইন করতে চাইবেন ততবার আপনাকে পাসওয়ার্ড দেওয়ার পরেও দুই স্তরের নিরাপত্তায় যাওয়া কোডটি দিতে হবে। হ্যাকাররা যদি আপনার পাসওয়ার্ড পেয়ে যায় তারপরেও তারা আপনার আইডি লগইন করতে পারবে না। এই ফেসবুক একাউন্টকে সুরক্ষিত রাখতে দুই স্তরের নিরাপত্তা অপশনটি বন্ধ করে রাখা উত্তম।

নিয়মিত পাসওয়ার্ড পরিবর্তন এর অভ্যাস করুন

ফেসবুক অ্যাকাউন্ট সুরক্ষিত রাখতে ঘনঘন পাসওয়ার্ড পরিবর্তন জরুরী। প্রতিমাসে পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করলে মোটামুটি ভালো হয়। এতে কেউ যদি পাসওয়ার্ড জেনে যায় তাহলে একটা সময় পরে আপনার যে পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে আইডি লগইন করতে পারবে না।

পাবলিক প্লেসে লগইনে কিছু বিষয় মাথায় রাখতে হবেঃ

  • সাইবার ক্যাফে বা কোন বন্ধুরর স্মার্টফোনে বিশেষ প্রয়োজনে আইডি লগইন সময় ‘কিপ মি লগড ইন’ বা ‘পাসওয়ার্ড সেভ’ অপশনে ক্লিক করা যাবে না।
  • একাধিক সাইটের জন্য একই পাসওয়ার্ড ব্যবহার করা যাবে না। যেমনঃ ফেইসবুক, গুগল, টুইটার, প্রভৃতিতে একই পাসওয়ার্ড ব্যবহার করা উচিত নয়। আপনি যদি একাধিক সাইটের জন্য একই পাসওয়ার্ড ব্যবহার করেন যে কেউ আপনার একটি পাসওয়ার্ড জানলে সবকিছুর পাসওয়ার্ড জেনে যাবে এবং আপনি বড় ক্ষতির মুখে পড়তে পারেন।
  • পাসওয়ার্ড কতটা শক্তিশালী তা পরীক্ষা করুন। যেমনঃ আমি পাসওয়ার্ডমিটারে গিয়ে আমার পাসওয়ার্ড কতটা শক্তিশালী তা পরীক্ষা করি।

 এছাড়াও আইডিকে সুরক্ষিত রাখতে আরো কিছু কাজ করা যেতে পারে.

১.ফ্রেন্ডলিস্টে পরিচিতদের রাখা। পরিচিত বাদে অপরিচিতদের ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট স্বীকার না করা।

২. ফটো বা ভিডিও শেয়ার করার সময় ‘ফ্রেন্ডস’ অপশন এ ক্লিক করা।

৩. সেটিংস পেইজে ‘টাইমলাইন এন্ড ট্যাগিং’ এ ক্লিক করুন এবং ‘ফ্রেন্ডস টু ফ্রেন্ডস’ থেকে ‘ফ্রেন্ড’ অপশনে চলে যান। এতে  আপনার একাউন্টে সুরক্ষা বাড়বে।

৪. তথ্য গোপন রাখতে ‘হিস্ট্রি’ এবং ‘কুকিস’ মুছে দিন।

৫. এছাড়া আপনার আইডিতে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে সাথে সাথে আইনি ব্যবস্থা নিন।

 

Sign Up to Our Newsletter

Be the first to know the latest updates

Whoops, you're not connected to Mailchimp. You need to enter a valid Mailchimp API key.

This Pop-up Is Included in the Theme
Best Choice for Creatives
Purchase Now