Skip to content Skip to footer

কিশোর কিশোরীদের শারীরিক স্বাস্থ্যের উপর সাইবার বুলিং এর প্রভাব

মানসিক স্বাস্থ্যের সাথে শারীরিক স্বাস্থ্যেতেও রয়েছে সাইবার বুলিংয়ের প্রভাব

প্রযুক্তির কল্যানে আজ যেমন সবকিছু হাতের মুঠোয় হওয়ার পরেও  আসক্ততা বাড়ছে ভার্চুয়াল জগতের উপরে। । এ আসক্ততার কারণে সৃষ্টি হয় নানান ধরনের সমস্যা যার মধ্যে সাইবার বুলিং অন্যতম। সাইবার বুলিং বর্তমানে ইন্টারনেট জগতের একটি আতঙ্কের নাম।  নর্থওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটির ফ্যামিলি ইনস্টিটিউটের একটি সমীক্ষায় বলা হয়েছে যে কিশোর-কিশোরীদের সাইবার বুলিং মোকাবিলা করতে বেশি অসুবিধা হয়। বাস্তবিক বুলিং এর সময় ভিকটিম অন্যের সাহায্য পেতে পারে কিন্তু অনলাইনে ভিকটিম একা হয়ে যায় ফলে অনেক সময় শক্ত প্রতিরোধ গড়ে তোলা সম্ভব হয় না।  ফলে সাইবার বুলিং ভিকটিমকে মানসিকভাবে দুর্বল করে দেয়।আচরণগত এবং মানসিক পরিবর্তনগুলো সাইবার বুলিং এর একমাত্র ক্ষতিকারক  প্রভাব নয়। শারীরিক পরিবর্তনগুলাও সাইবার বুলিং এর আওতায় পরে।  মূলত মানসিক পরিবর্তনগুলো শারীরিক পরিবর্তনে অনেক প্রভাব বিস্তার করে থাকে।মানসিক চাপ এবং উদ্বেগ, ডিপ্রেশন ইত্যাদিকে সাইবার বুলিং এর কারণে সৃষ্ট মানসিক সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। এই সমস্যা গুলোই পরবর্তীতে শারীরিক সমস্যা তৈরিতে ভূমিকা রাখে।সাইবার বুলিং এর মধ্যে কারো সম্পর্কে গুজব ,মিথ্যা ছড়ানো বা ব্যক্তিগত বিবরণ শেয়ার করা অন্তর্ভুক্ত থাকতে পারে। এটি বিভিন্ন মাধ্যমে ঘটতে পারে, যেমন:

  • লিখিত বার্তা
  • ইন্টারনেট সাইটে ছবি বা ভিডিও পোস্ট করা
  • সামাজিক মাধ্যম
  • গেমিং নেটওয়ার্ক
  • চ্যাট রুম
  • অনলাইন ফোরাম
  • অন্যান্য ডিজিটাল স্পেস ইত্যাদি।

সাইবার বুলিং পরবর্তী মানসিক স্বাস্থ্যের প্রভাব জনিত শারীরিক লক্ষণ –

– ওজন বৃদ্ধি বা হ্রাস : সাইবার বুলিং এর শিকার হওয়া  ব্যক্তিদের ক্ষুধা পরিবর্তনের অভিজ্ঞতা হতে পারে, যা অনিচ্ছাকৃত ওজন হ্রাস বা বৃদ্ধির কারণ হতে পারে।চিকিৎসা বিশেষজ্ঞরা ডায়াবেটিস এবং হৃদরোগ সহ অনেক স্বাস্থ্য সমস্যার সাথে অতিরিক্ত ওজন বৃদ্ধিকে যুক্ত করেছেন। কম ওজন হার্টের ক্ষতি করতে পারে, শারীরিক উর্বরতাকে প্রভাবিত করতে পারে এবং ক্লান্তি সৃষ্টি করতে পারে।

-গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল সমস্যা: হতাশাগ্রস্থ লোকেরা প্রায়শই পেটের বা হজমের সমস্যা, যেমন ডায়রিয়া, বমি বমি ভাব, বা কোষ্ঠকাঠিন্য অনুভব করে। ডিপ্রেশনে আক্রান্ত কিছু লোকেরও IBS সহ দীর্ঘস্থায়ী অবস্থা রয়েছে। পেটের আলসারের মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে।

-হৃদরোগ : সাইবার বুলিং পরবর্তী মানসিক সমস্যা ইতিবাচক জীবনধারা পছন্দ করার জন্য একজন ব্যক্তির প্রেরণা কমাতে পারে। তাদের হৃদরোগের ঝুঁকি বেড়ে যায় যখন তারা একটি খারাপ খাদ্য খায় এবং একটি আসীন জীবনযাপন করে।

-ঘুমের সমস্যা : সাইবার বুলিং অনিদ্রায় অবদান রাখতে পারে।ডিপ্রেশনে আক্রান্ত ব্যক্তিরা অনিদ্রা বা ঘুমের সমস্যা অনুভব করতে পারে।এই অবস্থা তাদের ক্লান্ত বোধ করতে পারে, শারীরিক এবং মানসিক উভয় স্বাস্থ্যকে পরিচালনা করা কঠিন করে তোলে।চিকিৎসকেরা ঘুমের অভাবকে অনেকগুলি স্বাস্থ্য সমস্যার সাথে যুক্ত করেছেন। গবেষণায় দেখা গেছে উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস, ওজন-সম্পর্কিত সমস্যা এবং কিছু ধরণের ক্যান্সারের সাথে দীর্ঘমেয়াদী ঘুমের বঞ্চনার সম্পর্ক রয়েছে।

– গ্রন্থির সমস্যা: ২০১৬ সালে প্রকাশিত গবেষণা অনুসারে, এটি হতে পারে কারণ হতাশা হাইপোথ্যালামাস, পিটুইটারি গ্রন্থি এবং অ্যাড্রিনাল গ্রন্থিগুলির কার্যকলাপকে দমন করে মানসিক চাপের প্রতি মস্তিষ্কের প্রতিক্রিয়া পরিবর্তন করে।

-দীর্ঘস্থায়ী ব্যথা : সাইবার বুলিং এর শিকার হওয়া ব্যক্তিরা জয়েন্ট বা পেশী ব্যথা, স্তনের কোমলতা এবং মাথাব্যথা সহ অব্যক্ত ব্যথা বা ব্যথা অনুভব করতে পারে। দীর্ঘস্থায়ী ব্যথার কারণে একজন ব্যক্তির বিষণ্নতার লক্ষণগুলি আরও খারাপ হতে পারে।

দেখায় যাচ্ছে যে, সাইবার বুলিং কিশোর-কিশোরীদের উপর অনেক নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। ভুক্তভোগীরা বিভিন্ন ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হতে পারে। আপনি যদি একজন কিশোর/ কিশোরী হন এবং আপনি যদি সাইবার বুলিং এর শিকার হন, তাহলে কিছু জিনিস আছে যা আপনি করতে পারেন  নিজেকে সাহায্য করতে এবং শারিরীক সমস্যাগুলো থেকে পরিত্রাণ পেতে। যেকোনো শারিরীক সমস্যায় অবশ্যই মা-বাবাকে জানাতে হবে এবং ডক্টরের শরণাপন্ন হতে হবে। সাইবার বুলিং এর জন্য কাউন্সেলিং নিতে হবে যার ফলে মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নয়ন হবে এবং যার প্রভাব সরাসরি শারিরীক স্বাস্থ্যের উপর লক্ষ করা যাবে।

সাইবার বুলিং-এর শিকার এবং যে এরূপ কাজ করে উভয়ের জন্যই গুরুতর পরিণতি হতে পারে। তাই, বাবা-মা এবং কিশোর-কিশোরীদের উভয়েরই সাইবার বুলিং রোধ করার জন্য এর প্রভাবগুলি সম্পর্কে জানা এবং এটি ঘটলে তা মোকাবেলা করা।

ব্লগটি লিখেছেন: শাবনুর আক্তার, আবিদ হাসান, তামীমা তাবাসসুম তুবা

Sign Up to Our Newsletter

Be the first to know the latest updates

Whoops, you're not connected to Mailchimp. You need to enter a valid Mailchimp API key.

This Pop-up Is Included in the Theme
Best Choice for Creatives
Purchase Now