Skip to content Skip to footer

সহজে রিকভার করুন আপনার ইমেইল অ্যাকাউন্ট!

মারিয়া রহমানঃ 

অনলাইন জগতে ইমেইল আইডি হ্যাক হওয়া একটি সাধারণ বিষয়ে রূপ নিয়েছে। যেহেতু ব্যক্তিগত অনেক তথ্য এই অ্যাকাউন্টের সাথে যুক্ত থাকে, তাই নিরাপত্তার পাশাপাশি হ্যাক হয়ে গেলে অ্যাকাউন্ট পুনরুদ্ধারের ব্যবস্থা সম্পর্কেও জানা উচিত।

অ্যাকাউন্ট রিকভার পদ্ধতি:

১. রিকভার ইমেইল দ্বারা, ফোন নাম্বার , সিকিউরিটি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে এবং গুগলের সাথে যোগাযোগ করে।

তবে হ্যাকার যদি রিকভার ইমেইল, ফোন নাম্বার , সিকিউরিটি প্রশ্নের উত্তর সাথে সাথেই পরিবর্তন করে ফেলে, সেক্ষেত্রে বিষয়টি আর সম্ভব হবে না। তখন গুগলের সাথে যোগাযোগ করে অ্যাকান্টটি উদ্ধার করতে হবে। তবে রিকভার করা মেইল  ব্যবহার করা মোটেই নিরাপদ না । অতি দ্রুত ইমেইলের মাধ্যমে অন্য যেসব সাইটে একাউন্ট করা আছে সেই একাউন্ট গুলো থেকে এই মেইল সরিয়ে ফেলা উচিত।

রিকভার করা মেইলের নিরাপত্তা না থাকার কারণ:

গুগলের সাথে যোগাযোগ করে মেইল রিকভার করতে যেসব প্রশ্নের উত্তর দিতে হয় তা সাধারণত অ্যাকাউন্টের সত্ত্বাধিকারী ছাড়া কেউ জানে না। আর বিষয় গুলো এমন যা পরিবর্তন করাও সম্ভব নয়। আর এই কারণেই রিকভার করা মেইল ব্যবহার করা নিরাপদ নয়।  কারণ রিকভার করার প্রশ্নের উত্তর গুলো হ্যাকার জেনে গেলে তিনি রিকভার করতে পারবে। আর হ্যাক হওয়া মেইল থেকে এই তথ্য বের করা অত্যন্ত সহজ।

অ্যাকাউন্ট রিকভার করার ক্ষেত্রে যেসব তথ্য দিতে হয়:

  • Recent used Email Address
  • Email addresses of up to five frequently emailed contacts
  • Names of up to four labels
  •  Account creation date
  • Last successful login date
  •  Last password you remember

তবে এসকল তথ্য দিয়ে অ্যাকাউন্ট ব্যবহারকারীর পাশাপাশি হ্যাকারও পুনরায় অ্যাকাউন্টটি নিজের আয়ত্তে নিয়ে যেতে পারবে। তাই এই তথ্যগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করা অত্যাবশ্যক।

স্প্যামিং এর শিকার হলে করণীয়:

ইমেইল স্প্যাম, আবর্জনা ইমেল হিসাবেও পরিচিত, ইলেকট্রনিক স্প্যাম একটি টাইপ যেখানে অযাচিত বার্তা ইমেইল দ্বারা প্রেরণ করা হয়। অনেকসময় অ্যাকাউন্ট ব্যবহারকারী বিভ্রানের শিকার হয়ে এসকল মেইলের মাধ্যমে ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে পড়েন।

উদাহরণস্বরূপ : লটারিতে বিপুল অংকের টাকা জিতেছেন- এমন মেইল পাওয়া। এক্ষেত্রে ব্যবহারকারী কোনোরকম যাচাই বাছাই ছাড়াই পরবর্তী পদক্ষেপগুলো গ্রহণ করে বসে। মাথায় রাখতে হবে, কোনো কারণ ছাড়া এরকম অর্থপ্রাপ্তির সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ। এছাড়া কোনো লিংক পাঠাকে তা প্রেস করলেও পরবর্তীতে ডিভাইস ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে।

তাই অনাবশ্যক বা সন্দেহপূর্ণ মেইল দেখলে তা এড়িয়ে চলাই ভালো। এছাড়া অ্যান্টি-ভাইরাস ব্যবহারসহ ইমেইল নিয়মিত হালনাগাদ করা উচিত।

Sign Up to Our Newsletter

Be the first to know the latest updates

Whoops, you're not connected to Mailchimp. You need to enter a valid Mailchimp API key.

This Pop-up Is Included in the Theme
Best Choice for Creatives
Purchase Now