Skip to content Skip to footer

” জানলে আইন নিরাপদ অনলাইন” শীর্ষক মতবিনিময় সভা।

অনলাইনে নারীর প্রতি সহিংসতাঃ বাঁধা এবং উত্তরণের উপায়’ শীর্ষক গবেষণা ফলাফল উপস্থাপন ও মতবিনিময় সভা  

জেন্ডার ভিত্তিক সহিংসতার বিরুদ্ধে সারা বিশ্বে ২৫শে নভেম্বর থেকে ১০ই ডিসেম্বর ১৬ দিনের কর্মসূচি পালন করা হয় যেটিকে “সিক্সটিন ডেইস অব এক্টিভিজম” বলা হয়ে থাকে। উক্ত কর্মসূচির অংশ হিসেবে “জানলে আইন নিরাপদ অনলাইন” – এই প্রতিপাদ্য নিয়ে আজ ব্র্যাক সেন্টার ইন ,মহাখালিতে একশনএইড বাংলাদেশ আয়োজন করে ‘ অনলাইনে নারীর প্রতি সহিংসতাঃ বাধা এবং উত্তরণের উপায়’ শীর্ষক গবেষণা ফলাফল উপস্থাপন ও মত বিনিময় সভা।

মতবিনিময় সভায় মডারেটর হিসেবে অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন একশনএইড বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর ফারাহ কবির। সভার শুরুতে উপস্থিত বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধি, স্বেচ্ছাসেবক, যুব কর্মীদের সামনে ‘অনলাইনে নারীর প্রতি সহিংসতা’ এর উপর অনলাইন গবেষণার একটি ফলাফল উপস্থাপন করেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বিশ্লেষক ও পরামর্শদাতা ফাইজুল করিম এবং নৃতত্ত্ববিদ ও গবেষক দিলশাদ সিদ্দিকা। উক্ত গবেষণায় উঠে আসে অনলাইনে ৬৩.৫১% নারীই হয়রানির শিকার হয়ে থাকেন। এছাড়াও তাদের গবেষণায় হয়রানির বিভিন্ন অনলাইন মাধ্যমের হার উঠে আসে। গবেষণায় অংশ নেওয়া সকলের মতামত থেকে কিছু বিশেষ পরামর্শ উঠে আসে যেগুলো অনলাইনে নারীর প্রতি সহিংসতা কমাতে পারবে বলে মনে করেন গবেষকগণ।

আন্তর্জাতিক শিশু শান্তি পুরস্কার বিজয়ী সাদাত রহমান উক্ত মতবিনিময় সভায় একজন প্যানেলিস্ট হিসেবে অংশ গ্রহণ করেন । তিনি কিশোর-কিশোরীদের সাইবার বুলিং প্রতিরোধে সাইবার টিন্স ফাউন্ডেশনের কার্যবিধি নিয়ে বিস্তর আলোচনা করেন । তিনি তার বক্তব্যে সাইবার বুলিং এর শিকার ভুক্তভুগীর নিরাপত্তা নিশ্চিত, সহযোগিতা এবং দ্রুত বিচার প্রত্যাশা করেন। এছাড়াও তিনি আমাদের দেশে সাইবার বুলিং প্রতিরোধে নিয়োজিত প্রশাসনের কর্মকর্তাদের  সুনির্দিষ্ট প্রশিক্ষণের উপর আলাদা গুরুত্ব আরোপ করেন।

সভায়  ডিজিটাল লিটারেসি সেন্টার প্রজেক্ট ডিরেক্টর মোহাম্মদ সাইফুল আলম খান একজন প্যানেলিস্ট হিসেবে উপস্থিত হয়ে অনলাইনে নিরাপদ থাকার জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সঠিক ব্যবহারবিধি শিক্ষার উপর জোর দেন। তিনি তার বক্তব্যে নিরাপদ ইন্টারনেট তৈরির লক্ষ্যে নেওয়া বাংলাদেশ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের বিভিন্ন উদ্যোগ  উল্যেখ করেন।

এছাড়াও উক্ত সভায় প্যানেলিস্ট হিসেবে উপস্থিত থেকে অনলাইনে নারীর প্রতি সহিংসতার বিভিন্ন দিক,বাংলাদেশের প্রেক্ষাপট এবং উত্তরণের উপায় তুলে ধরেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক জনাব তাসলিমা ইয়াসমিন, মনোরোগ বিশেষজ্ঞ ও পরামর্শদাতা ডাঃ আশিক সেলিম, অগ্নি ফাউন্ডেশনের সভাপতি তৃষা নাশ্তারান এবং দৈনিক কালের কণ্ঠের স্টাফ রিপোর্টার ফাতিমা তুজ জোহরা ।

সভায় প্যানেলিস্টগণ সবাইকে একতাবদ্ধ হয়ে  অনলাইনে নারীর প্রতি সহিংসতাসহ সকল প্রকার সহিংসতা বন্ধে অগ্রণি ভূমিকা রাখার প্রতিজ্ঞা করেন।

একশনএইড বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর ফারহা কবিরের সাথে সাইবার টিনস ফাউন্ডেশনের সদস্যরা । 

Sign Up to Our Newsletter

Be the first to know the latest updates

Whoops, you're not connected to Mailchimp. You need to enter a valid Mailchimp API key.

This Pop-up Is Included in the Theme
Best Choice for Creatives
Purchase Now